সম্পর্কে ছেদ ! স্বামীর বিরুদ্ধে আদালতের অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা

সম্পর্কে ছেদ ! স্বামীর বিরুদ্ধে আদালতের অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা

  বাংলা ধারাবাহিকে ভাই-বোনের চরিত্রে অভিনয়। অভিনয় সূত্রেই পরস্পরের কাছে আসেন এবং প্রেমে পড়েন রাহুলপ্রিয়াঙ্কা। এরপর ২০০৮ সালে পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর হাত ধরে বড় পর্দায় আসা। মুক্তি পায় ‘চিরদিনই তুমি যে আমার‘। এই সময় তারা লিভ-ইন সম্পর্কে থাকতে শুরু করেন। ২০১০ সালে ছবির জুটি বাস্তবেও বৈবাহিক জীবনে আবদ্ধ হন। কিন্তু পুত্র সহজ-এর জন্মের পর ক্রমশই তাদের দূরত্ব বাড়তে থাকে। সম্পর্কে ভাঙ্ন ধরে। বিগত বেশ কয়েক মাস ধরে দুজনে আলাদা থাকছিলেন।
     সম্প্রতি প্রিয়াঙ্কা শারীরিক-মানসিক নির্যাতন, সন্তানের দায়িত্ব এড়ানোর অভিযোগসহ ডিভোর্সের জন্য রাহুলের বিরুদ্ধে মামলা করেন। অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কার অভিযোগ, সহজের দায়িত্ব ও খরচ তিনিই বহন করছেন। বিচ্ছেদের পর থেকে রাহুল ছেলের কোনো দায়িত্ব নেয়নি। গত বছর হাই স্কুলে ভর্তির সময় ছেলের দায়িত্ব নেবেন বলেও শেষে  পিছিয়ে যায় রাহুল। কিছুদিন আগে সহজকে চাই না বলেও জানান রাহুল। সে রেকর্ডিংও তার কাছে আছে। কথা, আলোচনায় কাজ না হওয়ায় শেষমেশ তাকে আইনি পথ ধরতে হয়েছে বলে জানান প্রিয়াঙ্কা। এদিকে রাহুল জানিয়েছেন, সহজের পড়াশোনার জন্য ১ কোটি টাকা ২৫ লক্ষ টাকা চাওয়া হয়েছে তাঁর থেকে ৷

সম্পর্কে ছেদ ! স্বামীর বিরুদ্ধে আদালতের অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা

  
     রাহুলের বক্তব্য, তিনি বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে, সিরিয়ালে কাজ করেন ৷ ১ কোটি ২৫ লক্ষ টাকা এক লপ্তে তিনি কি কখনও চোখে দেখেছেন যে দিয়ে দিতে পারবেন? তাছাড়া, শুধু ছেলের পড়াশোনার জন্য এত টাকা লাগবে, এই পুরো বিষয়টিই তাঁর কাছে খুব হাস্যকর ঠেকেছে ৷ উলটে তাঁর দাবি, সহজ তো তাঁরই ছেলে ৷ কেন তাঁর দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করবেন তিনি? অভিনেতার বক্তব্য, প্রতি মাসে ২৫ হাজার টাকা করে সহজের জন্য তিনি প্রিয়াঙ্কাকে দিয়েছেন৷ কিন্তু কখনও ভাবেননি যে তার জন্য রসিদ কেটে রাখতে হবে৷ এমনকী জোর করে ছেলে সহজকে তাঁর কাছ থেকে দূরে সরিয়ে রেখেছেন প্রিয়াঙ্কা।
     আপাতত কোর্টের শুনানির অপেক্ষায় রাহুল-প্রিয়াঙ্কা। আগামী জুলাই মাসে শুনানির দিন ঠিক হয়েছে বলে জানা গেছে।  

Leave a Comment